শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৫:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
Logo হবিগঞ্জে দেশের সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা ও শিক্ষিকা রিবন রুপা দাশের রহস্যজনক মৃত্যু: হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন Logo বীরগঞ্জে মাদক বিক্রেতা স্বামী স্ত্রী সহ আটক ৩ Logo রংপুর বিভাগের শ্রেষ্ঠ এএসআই কুড়িগ্রাম সদর থানার শাহিন Logo নড়াইলের লোহাগড়ায় ক্লাইমেট স্মার্ট কৃষি প্রযুক্তি মেলা উদ্বোধন ও প্রিজাইডিং অফিসারদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত Logo নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্গন চেয়ারম্যান প্রার্থী আমিনুল ইসলামের সমর্থকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা Logo ভুট্টার বাম্পার ফলনে লাভের স্বপ্ন দেখছেন,বীরগঞ্জের ভুট্টা চাষীরা Logo সমস্ত জাতিবেদ প্রথা বিলুপ্তিতে শ্রীচৈতন্যদের ভূমিকা অপরিসীম Logo চট্টগ্রামে মানবাধিকার কর্মী জুয়েল আইচ এর নামে বিভিন্ন ফেইক আইডি থানায় জিডি Logo লাঙ্গল বন্দ স্নান উৎসবে সনাতনী সেচ্ছাসেবী ফাউন্ডেশনের সেবা দানে প্রসংশায় পঞ্চমুখ তীর্থযাত্রীবৃন্দ Logo বন্দরনগরী চট্টগ্রামে সনাতনী সেচ্ছাসেবী ফাউন্ডেশনের শরবত বিতরণ

নারীর নিরাপত্তা ও নিরাপদ যাতায়াতে বাসে সিসি ক্যামেরা

সোনার বাংলা নিউজ / ১১১ বার পঠিত
আপডেট : বুধবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২২, ২:২৮ অপরাহ্ণ
সংগৃহীত ছবি

শামীমা আক্তার (ছদ্মনাম), বয়স ২৭ বছর। পড়াশোনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ভালো বেতনে চাকরি করেন এখন।

প্রতিদিন রাজধানীর উত্তরা থেকে বাসে করে মিরপুরে যান কর্মক্ষেত্রে। তিনি বলছিলেন, ঢাকার গণপরিবহনে নারীদের চলাচল যে কতটা অনিরাপদ হয়ে পড়েছে, বিশেষ করে যৌন হয়রানির মতো ঘটনা— তার একজন ভিকটিম তিনি।

গহীনে গভীর দাগকাটা সেই অভিজ্ঞতার বর্ণনা শামীমা দিয়েছেন এভাবে— ‘গত মার্চে একদিন অফিসে যাওয়ার জন্য হাউস বিল্ডিং স্টপেজে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। অনেক্ষণ ধরে গাড়ি না আসায় যাত্রীদের ভিড় জমে গিয়েছিল।

‘পরিস্থান’ পরিবহনের একটি বাস আসতেই সবাই হুমড়ি খেয়ে পড়লো। অফিস মিটিংয়ে দেরি হয়ে যাচ্ছিল বিধায় আমিও পিছ পা হলাম না। কিন্তু গেট দিয়ে ওঠার সময় খুবই বাজে এক অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হলো।’
সেই বাজে অভিজ্ঞতাটা আসলে যৌন হয়রানির। সে জন্য ঘটনাটি খুলে বলতে ইতস্তত করছিলেন শামীমা আক্তার। তারপর তিনি যা বললেন এবং ইশারা-ইঙ্গিতে যা বুঝালেন তা হলো— যাত্রীদের ভিড়ের মধ্যেই হেলপার তার পিঠে হাত দিয়ে গাড়ির দিকে টান মারে।

সেটির প্রতিবাদ করার কথা ভাবার মধ্যেই বুকের স্পর্শকাতর স্থানে আরেক পুরুষযাত্রীর হাতের আপত্তিকর ধাক্কা লাগলো। অপরদিকে পেছন থেকেও অস্বস্তিকর ছোঁয়া অনুভব করেন। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে এমন ত্রিমুখী কাণ্ড এবং তার আকস্মিকতায় রীতিমতো হতবাক হয়ে যান শামীমা। পরিস্থিতির কারণে বিষয়টি চেপে গেলেন এবং সিট না পেয়ে পুরো পথ ওপরের রড ধরেই যেতে হয় তাকে।

এ তো গেলো একজন শামীমার তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা ও ব্যথা। আরও বেশ কয়েকজন নারী যাত্রীর সঙ্গে কথা বলে নানা ধরনের বিচিত্র ঘটনা এবং হয়রানির বিষয়টি জানা গেলো। তাদের বক্তব্যের মূল কথা হলো— অনেক সময় বাসে উঠতে গিয়ে হেলপার বা যাত্রীদের কাছে হেনস্তা হতে হয়।

গাড়ির ভেতরে চলাচল করার পাশের সিটে বসলে এবং দাঁড়িয়ে থাকলে প্রায়ই তাদের বিব্রতকর ধাক্কা বা ঘষা দেওয়ার ঘটনা ঘটে। বাসে ভিড় থাকলে শরীরের বিভিন্ন স্থানে আপত্তিকর স্পর্শ করেন অনেকে। পাশের সিটের যাত্রীর দ্বারাও হয়রানির শিকার হতে হয়।

হাফ ডজন নারী যাত্রী বলেছেন, হয়রানির শিকার হয়েও অনেকেই অবস্থার কারণে চেপে যান। তারা দিনের পর দিন এভাবে মুখ বুঝে সহ্য করে যাচ্ছেন যন্ত্রণাদায়ক এই তিক্ততা। কেউ কেউ প্রতিবাদ করেন। তাতেও পরিস্থিতির খুব একটা উন্নতি হয় না। আসলে গণপরিবহন ব্যবস্থা নারীবান্ধব না হওয়ায় এবং এই ধরনের অপরাধের ক্ষেত্রে তেমন একটা শাস্তি না হওয়ায় অবস্থার আরও অবনতি হচ্ছে।

এমতাবস্থায় ঢাকার গণপরিবহনে নারীদের যাত্রা নিরাপদ করতে গত রবিবার (১৬ অক্টোবর) শতাধিক বাসে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়। মিরপুরে এই কার্যক্রম উদ্বোধন করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে অন্য একটি সংস্থার কারিগরি সহযোগিতা নিয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে দীপ্ত ফাউন্ডেশন। পরিস্থান পরিবহন, রাজধানী সুপার সার্ভিস, প্রজাপতি পরিবহন, বসুমতি পরিবহন ও গাবতলী এক্সপ্রেসে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের কথা জানানো হয় এদিন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নারীরা গণপরিবহনে চলাচলের ক্ষেত্রে অনিরাপদ বোধ করেন। তারা গণপরিবহনে যাতায়াতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন না। সেজন্য গণপরিবহনে নারীদের যাত্রা আরও নিরাপদ করতে ও স্বাচ্ছন্দ্য আনতে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এর ফলে ৯৯৯ ও ১০৯-এ কল করে হয়রানির শিকার নারীরা অভিযোগ জানালে সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করে ব্যবস্থা নেওয়া সহজ হবে।

তবে বেশ কয়েকজন নারীযাত্রীর অভিমত হলো— বাসে নারী হেনস্তা বা যৌন হয়রানির ঘটনাগুলো ঘটিয়ে থাকেন কুরুচিপূর্ণ একশ্রেণির পুরুষ। তারা এ জাতীয় ঘটনা সুযোগ বুঝে প্রায়ই করে থাকেন এবং সেটি ভিড়ের মধ্যে কিংবা আড়ালে-আবডালে করেন তারা। ফলে সিসি ক্যামেরা দিয়ে তাদের কতটা নিবৃত করা যাবে, সেটি নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। তবে এই কার্যক্রমের মাধ্যমে এক ধরনের সচেতনতা তৈরি হবে।

তারা আরও বলেছেন, বাসে নারীর ওঠার সময়, বাসের ভেতরে ভিড়ের মধ্যে এবং পাশের সিটের যাত্রীর মাধ্যমে যেসব হেনস্তা বা হয়রানির ঘটনা ঘটবে, সেটি ঠেকানোর উপায় কী? এ ধরনের ঘটনা নিয়ে কেউ ৯৯৯ ও ১০৯-এ কল করে অভিযোগ দিলে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

সেই প্রক্রিয়াটি কীভাবে হবে এবং সে ক্ষেত্রে অভিযোগকারী নারীকে আবার দৌড়ঝাঁপ করতে হবে কিনা, সে ব্যাপারে তারা স্পষ্ট নয়। এ জন্য হয়তো অনেকে অভিযোগ করতে উৎসাহী নাও হতে পারেন। ‘ভাঙাচোড়া’ গাড়িতে সিসি ক্যামেরা এবং এত গাড়ির মধ্যে শ’খানেক গাড়িতে সিসি ক্যামেরা স্থাপনে নারী যাত্রীরা কতটা উপকৃত হবেন, তাও সংশ্লিষ্টদের ভেবে দেখার অনুরোধ করেছেন তারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দীপ্ত ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক জাকিয়া কে হাসান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘গণপরিবহন নারীদের জন্য নিরাপদ ও উন্নত করতে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের প্রকল্পটি চ্যালেঞ্জিং। সরকারি অর্থায়নে প্রকল্পটি আমরা বাস্তবায়ন করছি। চার বছর ধরে এটি নিয়ে কাজ করছি। এই সময়ে বাস ড্রাইভার, হেলপার ও মালিকদের সঙ্গে মতবিনিময় হয়েছে, তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মানুষজনকে সচেতন করতে চেষ্টা করেছি।’

এরইমধ্যে প্রকল্পটির সুফল পাচ্ছেন দাবি করে তিনি আরও বলেন, ‘বাস মালিকরা সিসি ক্যামেরা বসানোর ক্ষেত্রে আগ্রহী। যাত্রীদের মাঝেও এক ধরনের সচেতনতা তৈরি হয়েছে। এখন এই পাইলট প্রকল্পের সুফলের ওপর নির্ভর করছে সব কিছু। কাঙ্ক্ষিত সুফল মিললে প্রকল্পটি এগিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছে মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয়। ৩ বছর মেয়াদি প্রকল্পটি ২০১৮ সালের ৯ জানুয়ারি নেওয়া হয়। এর ব্যয় ২ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। করোনা মহামারির কারণে বিদেশ থেকে যন্ত্রপাতি আসতে সময় লেগেছে।’

আঁচল ফাউন্ডেশন বলছে, রাজধানীর গণপরিবহনে প্রায় ৬৪ শতাংশ নারী নানা ধরনের হয়রানির শিকার হয়ে থাকেন। এরমধ্যে ৪৬ দশমিক ৫ শতাংশ যৌন হয়রানির শিকার, ১৫ দশমিক ৩ শতাংশ বুলিং, ১৫ দশমিক ২ শতাংশ সামাজিক বৈষম্য, ১৪ দশমিক ৯ শতাংশ লিঙ্গবৈষম্য এবং ৮ দশমিক ২ শতাংশ বডি শেমিংয়ের শিকার হন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD