রবিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
Logo সমাজ উন্নত করতে এবং দুর্যোগ মোকাবেলায় যুব স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষনের গুরুত্ব অপরিসীম Logo নড়াইলের চিহ্নিত ডিজিটাল প্রতারক বেনজির ঢাকা’র কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের হাতে গ্রেপ্তার Logo মানবতার নজির, ৪১ জন শ্রমিকের উদ্ধারের পর বার্তা প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতির Logo জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে সনাতন টিভি’র ৮ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত। Logo নড়াইলে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু Logo বীরগঞ্জে জাতীয় যুব উন্নয়ন দিবস পালিত Logo বীরগঞ্জে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কোজাগরী লক্ষ্মী পূজা উপলক্ষে বিভিন্ন আয়োজন Logo ফুলবাড়ীতে উপজেলা আ’লীগের শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত Logo নড়াইলে বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে নৌকাবাইচ অনুষ্ঠিত Logo নড়াইলে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হলো শারদীয় দুর্গোৎসব

বিশ্বকাপের বিরানব্বই ফিরিয়ে আনতে পারবে পাকিস্তান

সোনার বাংলা নিউজ / ৩৭ বার পঠিত
আপডেট : শনিবার, ১২ নভেম্বর, ২০২২, ৯:১৮ অপরাহ্ণ

মেলবোর্নে রোববার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড।

প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে চলমান এই টুর্নামেন্টের শেষ ম্যাচে নির্ধারিত হবে কে হতে যাচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন।

বাংলাদেশ সময় দুপুর দুইটায় শুরু হবে এই ম্যাচটি।

এই ম্যাচটি বিশ্বজুড়ে ক্রিকেট সমর্থকদের প্রায় ত্রিশ বছর পেছনে ফিরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, যেবার ওয়ানডে বিশ্বকাপে অনুপ্রাণিত এক ইমরান খানের নেতৃত্বে পাকিস্তান ক্রিকেট দল প্রথম বারের মতো ক্রিকেটের কোনও শিরোপা জিতেছিল।

টেস্ট ম্যাচ স্পেশাল ধারাভাষ্যকার আতিফ নাওয়াজ বিবিসি স্পোর্টের একটি কলামে লিখেছেন, “১৯৯২ সালেও এমনই হয়েছিল।”

সেবারও পাকিস্তান টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচ হেরে গিয়েছিল- ভারতের বিপক্ষেই।

গ্রুপ পর্বের শেষদিন এক পয়েন্টে এগিয়ে থেকে সেমিফাইনালে খেলা নিশ্চিত করেছিল। এখানেই শেষ না, পাকিস্তান সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডকেই হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছিল।

মেলবোর্নে ইংল্যান্ডকে ২২ রানে হারিয়েছিল।

আতিফ নাওয়াজ লিখেছেন, ‘এটা কি এবারও হবে?’

আতিফ নাওয়াজের মতে, ‘সেবছরই পাকিস্তানিরা ক্রিকেটের প্রেমে পড়েছিল’।

ইংল্যান্ড ভারতের বিপক্ষে সেমিফাইনালে যেভাবে ১৬৮ রান তাড়া করা শুরু করে তাতে একটা পর্যায়ে মনে হচ্ছিল ১৬০-৭০ কেন, ২০০ রানও খুব অনায়াসেই তাড়া করে ফেলবেন জস বাটলার ও অ্যালেক্স হেইলস।

এমনই ফর্মে আছেন এ দুজন, ভারতের বোলারদের কোনও সুযোগই পাননি সেমিফাইনালে।

একশ সত্তর রান চার ওভার বাকি থাকতেই তুলে ফেলেন ইংল্যান্ডের দুই ওপেনার।

পাঁচ ম্যাচে ৪৯ গড়ে ১৪৩ স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করছেন জস বাটলার। ২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও তিনি ছিলেন ব্যাট হাতে স্টার পারফর্মার।

অন্যদিকে অ্যালেক্স হেইলস, এই ওপেনারের জন্য এবারের বিশ্বকাপ আরও স্পেশাল।

জনি বেয়ারস্টোর হঠাৎ পাওয়া আঘাত এবং জেসন রয়ের ব্যাট হাতে খারাপ ফর্মের কারণে অ্যালেক্স হেইলস তিন বছর পর ইংল্যান্ডের জার্সি গায়ে মাঠে নামার সুযোগ পেয়েছেন এবার।

পাঁচ ম্যাচ ব্যাট করে ২১১ রান তুলেছেন হেইলস।

ইংল্যান্ডের হয়ে এই বিশ্বকাপে এখন সর্বোচ্চ রান তারই, ভারতের বিপক্ষে সেমিফাইনালে তিনি ৮৬ রানের নট আউট ইনিংস খেলেছেন।

এই ব্যাটিং লাইন আপের সামনে ফাইনালের মঞ্চে বড় দায়িত্ব থাকবে পাকিস্তানের ফাস্ট বোলিং লাইন আপকে সামলানো।

যেখানে ইনজুরি ফেরত শাহীন শাহ আফ্রিদি আছেন দুর্দান্ত ফর্মে।

এই বিশ্বকাপে শাহীন শাহ আফ্রিদি ধীরে ধীরে নিজের ফর্ম ফিরে পেয়েছেন।

প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ৪ ওভারে ৩৪ রান দেয়ার পর আর একবারও ৩০ রান হজম করেননি কোনও ম্যাচে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৪ রানে তিন উইকেট, বাংলাদেশের বিপক্ষে ২২ রানে দুই উইকেটের পর সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের গুরুত্বপূর্ণ দুই ব্যাটসম্যান ফিন অ্যালেন ও কেইন উইলিয়ামসনকে আউট করেছেন মাত্র ২৪ রান খরচ করে।

ছয় ম্যাচ বল করে ১০ উইকেট নিয়েছেন শাহীন, রান দিয়েছেন ওভারপ্রতি ৬ এর মতো।

এই বছর এশিয়া কাপেই প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলা নাসিম শাহ এবার ডেথ ওভার বোলিংয়ে নিজেকে অনন্য পর্যায়ে নিয়ে গেছেন।

স্লোয়ার বাউন্সারের দিক থেকে বিশেষত, পাকিস্তান নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালে শেষ পাঁচ ওভারে মাত্র দুটি চার হজম করেছে।

সুপার টুয়েলভ পর্ব শুরু হওয়ার পর পাকিস্তানের ইকোনমি রেট সবচেয়ে কম দলগুলোর মধ্যে। পাকিস্তানের বোলাররা সাড়ে ছয় করে রান দিয়েছেন ওভার প্রতি।

বাকি সব দলই অন্তত সাত করে রান দিয়েছে প্রতি ওভারে।

সেমিফাইনাল ম্যাচে পাকিস্তান গোটা বিশ ওভারে কোনও ওয়াইড বল বা নো বল দেয়নি।

অথচ এই পাকিস্তান চলতি বিশ্বকাপেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হেরেছে। ভারতের বিপক্ষে শেষ ওভারে দুটি ওয়াইড বল ও একটি নো বল দিয়েছে।

পাকিস্তান দলটি এখন কেবল তেঁতেই নেই তারা পারফরম্যান্সের দিক থেকেও নিখুঁত হওয়ার চেষ্টা করছে।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালে ম্যাচে শত রানের জুটি গড়েছেন পাকিস্তানের আলোচিত ওপেনিং জুটি- বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান।

বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তিনটি শত রানের জুটি গড়েছেন। টুর্নামেন্টের ইতিহাসে এই রেকর্ড আর কোনও জুটির নেই।

তবে বাবর-রিজওয়ান এমন ফর্মে ছিলেন না কদিন আগেও। এই টুর্নামেন্টে বাবর আজম এর আগের পাঁচ ম্যাচ ব্যাট করে মাত্র ৩৯ রান তোলেন।

সেমিফাইনালের ঠিক আগেই পাকিস্তানের ব্যাটিং কোচ ম্যাথু হেইডেন বলেছিলেন, ‘পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম এমন কিছুই করবেন যা বাকিরা দেখে অবাক হবে।’

আসলেই তাই, প্রথম পাঁচ ম্যাচে মাত্র ৩৯ রান করা বাবর, সেমিফাইনালে ব্যাট হাতে নেমে তুলে নেন ৪২ বলে ৫৩ রান।

পাকিস্তান এবার টপ অর্ডারের ব্যাটিং নিয়ে ভুগছিল, বিশেষত বাবর-রিজওয়ানের ব্যাটে রান না আসায় পাঁচ ম্যাচেই মিডল অর্ডার চাপ নিয়ে ব্যাটিং করেছে।

যেখানে পাকিস্তানের টপ অর্ডার রান তুলতেই হিমশিম খাচ্ছিল সেখানে বাবর ও রিজওয়ান সিডনির সেমিফাইনালে ১০ ওভারে ৮৭ রান তুলে নেন।

বাবর আজম ফাইনালের আগে বলেছেন, “সমর্থকদের পাশে থাকা আমাদের জন্য আত্মবিশ্বাসের। আমরা শতভাগ চেষ্টা রাখবো তাদের মুখে হাসি ফোটানোর।”

সেমিফাইনাল সহজে জিতে গেলেও ইংল্যান্ডের টিম ম্যানেজমেন্ট টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই ইনজুরি নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিল।

টুর্নামেন্টের আগে জনি বেয়ারস্টো, টুর্নামেন্টের শুরুতে রিস টপলে।

টুর্নামেন্টের মাঝে সুপার টুয়েলভ পর্বের ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মাঠেই চোট অনুভব করে মাঠ ছেড়েছিলেন ডাউইড মালান।

আর সেমিফাইনালের আগে জড়তা অনুভব করছিলেন মার্ক উড, যিনি এই আসরের সবচেয়ে দ্রুতগতির বলটি করেছেন।

তিনি এই টুর্নামেন্টে ঘণ্টায় ১৪৯ কিলোমিটার গতিতে বল করছিলেন।

বত্রিশ বছর বয়সী এই ফাস্ট বোলার সেমিফাইনাল মিস করেছেন। বিবিসি স্পোর্ট অনুমান করছে তিনি ফাইনালেও খেলতে পারবেন না। এর আগে চার ম্যাচে নয় উইকেট নিয়েছেন তিনি।

বিবিসির রেডিও পডকাস্টে মার্ক উড বলেন, “আমি চেষ্টা করছিলাম ম্যাচে ফেরার। কিন্তু যে গতি ও তীব্রতা প্রয়োজন আমার সেটা আমি পাচ্ছিলাম না।”

ডাউইড মালানও চোট কাটিয়ে পুরোপুরি ফেরেননি।

ইংল্যান্ডের কোচ ম্যাথু মট বিবিসিকে বলেন, “আমরা ওদের সময় দিচ্ছি। দেখা যাক শেষ পর্যন্ত কী হয়।”

শনিবার মেলবোর্নের যেসব ছবি দেখা গেছে, আকাশে মেঘ ছিল।

যদি শেষ পর্যন্ত বৃষ্টির কারণে খেলা না হয় সেক্ষেত্রে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তানকে যৌথভাবে শিরোপা দেয়া হবে।

একদিন রিজার্ভ ডে হিসেবে বরাদ্দ আছে, সেখানে সাথে আরও দুই ঘণ্টা যোগ করা হয়েছে।

এর আগে এই টুর্নামেন্টে বৃষ্টির কারণে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার একটি ম্যাচ মাঠে গড়ায়নি।

এমনকি ইংল্যান্ড আয়ারল্যান্ডের একটি ম্যাচ মাঝপথে বৃষ্টির কারণে শেষ পর্যন্ত ডার্কওয়ার্থ-লুইস-স্টার্ন মেথডে আয়ারল্যান্ড জয় পেয়ে যায়।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এর আগে দুইবার মুখোমুখি হয়েছিল ইংল্যান্ড ও পাকিস্তান। ২০০৯ সালে লন্ডনের ওভালে এবং ২০১০ সালে ব্রিজটাউনে, দুটি ম্যাচেই ইংল্যান্ড জয় পেয়েছিল।

সম্প্রতি পাকিস্তানের মাটিতে একটি সাত ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ইংল্যান্ড ৪-৩ ব্যবধানে জয় নিয়ে ফিরেছে।

কিন্তু মেলবোর্নে মাঠে নামার আগে সমর্থক ও বিশ্লেষকদের অনেকেই সমীকরণ মেলাচ্ছে ত্রিশ বছর আগের – পাকিস্তান সেবার জয় পেয়েছিল ২২ রানের, বাইশে কি বিরানব্বই ফেরাতে পারবে পাকিস্তান?


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD