শনিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৪:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
Logo সমাজ উন্নত করতে এবং দুর্যোগ মোকাবেলায় যুব স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষনের গুরুত্ব অপরিসীম Logo নড়াইলের চিহ্নিত ডিজিটাল প্রতারক বেনজির ঢাকা’র কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের হাতে গ্রেপ্তার Logo মানবতার নজির, ৪১ জন শ্রমিকের উদ্ধারের পর বার্তা প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতির Logo জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে সনাতন টিভি’র ৮ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত। Logo নড়াইলে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু Logo বীরগঞ্জে জাতীয় যুব উন্নয়ন দিবস পালিত Logo বীরগঞ্জে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কোজাগরী লক্ষ্মী পূজা উপলক্ষে বিভিন্ন আয়োজন Logo ফুলবাড়ীতে উপজেলা আ’লীগের শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত Logo নড়াইলে বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে নৌকাবাইচ অনুষ্ঠিত Logo নড়াইলে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হলো শারদীয় দুর্গোৎসব

নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রী পুষ্পকুমার দহল প্রচণ্ড

সোনার বাংলা নিউজ / ১৯৪ বার পঠিত
আপডেট : রবিবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২২, ১০:২০ অপরাহ্ণ

হিমালয় কন্যা নেপালি রাজনীতিতে একটি নাটকীয় মোড়। দিনভর নানা নাটকীয় ঘটনার পর অবশেষে দেশের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন মাওবাদী নেতা পুষ্প কুমার দাহাল। যিনি প্রচন্ড নামেই বেশি পরিচিত। সবকিছু ঠিক থাকলে তিনিই হবেন নেপালের নতুন সরকারপ্রধান।

মাওবাদী নেতা প্রচন্ডকে স্পিকার পদ দিতে বলা হয়েছিল। এতে তিনি রাজি হননি। ফলে রবিবার সকালে নেপালি কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন পাঁচ দলীয় জোট থেকে বেরিয়ে যান তিনি। যার কারণে নবগঠিত সরকার সংখ্যালঘুতে পরিণত হয়।

এরপর এলো নাটকীয় মোড়। দুপুর নাগাদ, বিরোধী সিপিএন-ইউএমএল সহ ছোট দলগুলি প্রচন্ডকে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে সমর্থন করতে সম্মত হয়। ফলে মাওবাদী নেতা প্রখন্ড নেপালের প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসতে এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।

 

অলির দলের সঙ্গে চুক্তি করেছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা। দুই পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী ভাগাভাগি করবেন। প্রচন্ডকে প্রথম প্রধানমন্ত্রী করতে রাজি হন অলি। তাই নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রী বেশ উচ্ছ্বসিত। পরের দফায় প্রধানমন্ত্রী হবেন অলি।

প্রচণ্ডের নেতৃত্বাধীন সিপিএন-এমসি, অলি নেতৃত্বাধীন সিপিএন-ইউএমএল, রাষ্ট্রীয় স্বতন্ত্র পার্টি (আরএসপি) এবং অন্যান্য ছোট দলগুলি রবিবার অলির বাসকোটের বাসভবনে বৈঠক করেছে। সেখানে সব দলের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:সভাপতিমণ্ডলীর পদ থেকে বাদ পড়লেন নাহিদ ও মান্নান

দলগুলো নিজেদের মধ্যে সমঝোতা করে জোট সরকার গঠনে রাজি হয়েছে। সিপিএন-এমসি নেতা দেব গুরুং বলেছেন যে নেপালের সংবিধানের 76 (2) অনুচ্ছেদ অনুসারে 165 জন আইনপ্রণেতা চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছেন। চুক্তিটি রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, নেপালের নিম্নকক্ষে নেপালি কংগ্রেস সংখ্যাগরিষ্ঠ দল। তাদের আসন রয়েছে ৮৯টি। সরকার গঠনের জন্য ১৩৮ জনের সমর্থন প্রয়োজন। নতুন জোট সরকারকে ১৬৫ জন সমর্থন দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার 30 দিনের মধ্যে প্রচন্ডকে আস্থা ভোটে তার সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD